ওরা বিজাতির চক্রান্তে পড়েছে- মুফতি দিলাওয়ার হোসাইন

জগৎ জুড়ে খ্যাত দাওয়াত ও তাবলিগের কাজ। সহীহ নিয়ত, একরামুল মুসলিমিনের দীক্ষায় একই প্লেটে যারা খাবার খেয়ে আসছিল, তারাই আজ দু দলে বিভক্ত। শুধু কি বিভক্ত? হাতাহাতি, মারামারি, খুনাখুনির এমন কলঙ্কজনক অধ্যায় ঘটেনি দাওয়াত ও তাবলীগের ইতিহাসে, যা ঘটেছে ১ ডিসেম্বর শনিবার সকাল ১০টায় টঙ্গী ইজতেমা মাঠে। ওলামায়ে কেরামের দিকনির্দেশনা ছাড়া দ্বীন সঠিকভাবে টিকে থাকা কখনোই সম্ভব নয়। ওরা (সাদপন্থীরা) যেহেতু আগে থেকেই ওলামা বিদ্বেষ, আলেমদের কথা আগে মানত না, এখনো মানে না এবং শুনতে চাইতো না, তাই তাদের মনে দ্বীনের প্রকৃত বুঝ আসে নাই। দ্বীন না আসলে যা হবার, তাই হল এখন। দ্বীন যদি থাকতো, শরিয়ত থাকতো, তাহলে এ ধরনের হিংস্রতা, এ ধরনের উগ্রতা কখনো করত না। আগে যা ভেতরে লুকিয়ে রেখেছিল এখন তারই প্রকাশ ঘটেছে। একরামুল মুসলিমিন ভেতরে ছিল না , ভেতরে ছিল হিংস্রতা। তাই ভেতরেরটা প্রকাশ করেছে। ইসলামকে কিভাবে কলুষিত করা যায় তার পাঁয়তারা তাড়া করে যাচ্ছে। তাদের মিশন হল জনসাধারণ থেকে আলেমদের বিচ্ছিন্ন করা। কারণ ওরা বিজাতির চক্রান্তে পড়েছে।

Leave a Reply