তাবলীগ সংকট নিরসনে মুফতী তাকী উসমানীর নেতৃত্বে কমিটি গঠন

তাবলিগ জামাতের বর্তমান সংকট নিরসনে মুফতী তাকী উসমানীর নেতৃত্বে গঠিত হয়েছে কমিটি। চিঠি পাঠানো হয়েছে নিজামুদ্দীন ,কাকরাইল সহ বিশ্বের চার মারকাযে।

পাকিস্তানের বহুল প্রচলিত রোজনামা ইসলাম পত্রিকার বরাতে জানা যায়, সম্প্রতি বাংলাদেশের টঙ্গীর ইজতেমা ময়দানে ঘটে যাওয়া দুঃখ জনক ঘটনা ও তাবলিগ জামাতের বর্তমান সংকট নিরসনে গত শনিবার ১৩-০১-২০১৯ বর্তমান বিশ্বের বিখ্যাত আলেম মুফতি মুহাম্মদ ত্বকী উসমানীর আহ্বানে পাকিস্তানের প্রশিদ্ধ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান দারুল উলুম কারাচিতে সে দেশের বড় বড় উলামায়ে কেরামের উপস্থিতিতে এক গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকের সভাপতিত্বে ছিলেন দেশটির গ্রান্ড মুফতি ও প্রতিষ্ঠানের মহা পরিচালক মুফতী মুহাম্মদ রাফী উসমানী।
বৈঠকে সম্প্রতি ১লা ডিসেম্বর বাংলাদেশের টঙ্গীর ইজতেমা ময়দানে ঘটে যাওয়া দুঃখজনক ঘটনা ও হিন্দুস্তানে বিরাজমান তাবলিগ জামাতের বর্তমান সংকটে উলামায়ে কেরাম খুবই মর্মাহত চিন্তিত বলে উল্লেখ করেন।
এবং পাশাপাশি এই সিদ্ধান্তও গৃহীত হয়েছে যে সকল আকাবির উলামাদের পক্ষ হতে সর্বসম্মতিক্রমে তাবলিগ জামাতের চারটি বড় বড় মারকাযে সহমর্মিতা ও সংবেদনশীলতার সাথে চিঠি পাঠানো হবে যে তারা যেন পরস্পর মতানৈক্য দূর করে দেয়। আর এ জন্য যে কোনো প্রকার ত‍্যাগ স্বীকার করতে হলেও যেন করে। এবং এক শতাব্দীরও বেশি সময় ধরে দাওয়াত ও তাবলীগের মাধ্যমে দ্বীন ইসলামের যে প্রচার প্রসার হচ্ছে তা যেন পরিপূর্ণ ভাবে সংরক্ষণ করে । পরস্পর মতানৈক্য বৃদ্ধি না করে সমঝোতা করার চেষ্টা করে। এবং ধৈর্য ও সহনশীলতার পরিচয় দেয়।

বৈঠকে একথাও সিদ্ধান্ত হয় যে , পরস্পর সমঝোতার তদারকির দায়িত্ব থাকবে আকাবির উলামায়ে কেরামের হাতে। এতে তারা কোনো গ্রুপের পক্ষে অথবা বিপক্ষে কাজ করবেন না।

সারা দেশের উলামায়ে কেরাম এর উপস্থিতিতে সকলেই ঐক‍্যমত পোষন করেন যে, সৃষ্ট বিশৃংখলা ছড়ানো কে ঘৃণার চোখে দেখার সাথে সাথে তাবলিগ জামাতের সমর্থণ ও সার্বিক তদারকি পূর্বের ন্যায় উলামায়ে কেরাম এর হাতেই থাকবে।

উপস্থিত উলামাগণ আল্লাহ তায়ালার শুকরিয়া আদায় করে বলেন, আজ পর্যন্ত পাকিস্তানে তাবলিগ জামাত নিয়ে কোনো ধরনের বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হয়নি । আগামীতেও যেন কোনো প্রকার বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হতে না পারে এব‍্যাপারে সকলকে সর্বাত্মক চেষ্টা চালিয়ে যেতে হবে । এবং সারা বিশ্বে এই প্রচেষ্টার ধারা অব্যাহত রাখতে হবে । পাকিস্তানে যেভাবে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে এক ও একতার সাথে দাওয়াত ও তাবলীগের কাজ হচ্ছে তা আরোও বেগবান করতে হতে । একথার প্রতিও সবাই সম্মতি প্রকাশ করেন যে , পাকিস্তানের উলামায়ে কেরাম নিরপেক্ষ অবস্থান ঠিক রাখতে পাকিস্তানের বাহিরে যে কোনো গ্রুপের সমর্থনে কোনো ধরনের বয়ান প্রদান করবে না ।
একথাও গৃহীত হয় যে, আমির ও শুরা উভয়টিই অত‍্যাবশ‍্যকিয় বিষয় । তবে তা হতে হবে পরস্পর মতপরামর্শের মাধ্যমে।

উলামায় কেরাম যারা উপস্থিত ছিলেন

১- মুফতী মুহাম্মদ রাফী উসমানী, মহাপরিচালক দারুল উলুম কারাচি।
২- মুফতী মুহাম্মদ তাকী উসমানী , সহকারী মহাপরিচালক দারুল উলুম কারাচি।
৩- মাওলানা আনোয়ারুল হক , মুহতামিম দারুল উলুম হাক্কানিয়া আকুডা খটক।
৪- মুফতী আব্দুর রাহিম , পরিচালক জামিয়াতুর্ রাশিদ কারাচি।
৫- মাওলানা ফজলুর রাহিম , মুহতামিম জামিয়া আশরাফিয়া লাহুর।
৬- মাওলানা যাহেদুর রাশেদী , মুহতামিম জামিয়া নুসরাতুল উলুম গুজরাওয়ালা।
৭- মুফতী গোলামুর রাহমান , মুহতামিম জামিয়া উসমানিয়া পেশাওয়ার।
৮- মাওলানা হাকিম মুহাম্মদ মাজহার জামিয়া আশরাফুল মাদারিস।
৯- মাওলানা মুহাম্মদ তাইয়‍্যাব , মুহতামিম জামিয়া এমদাদিয়া ফয়সালাবাদ।
১০- মাওলানা ডঃ আদেল, মুহতামিম জামিয়া ফারুকিয়া কারাচি।
১১- মাওলানা কাজী আব্দুর রাশিদ , মুহতামিম দারুল উলুম ফারুকীয়া রাউয়েলপেন্ডী।
১২- কারী মেহেরুল্লাহ , মুহতামিম তাজবিদুল কুরআন কুয়েটা।
১৩- মাওলানা তানবীরুল হক, মুহতামিম জামিয়া এহতেশামিয়া কারাচি ।
১৪- মাওলানা এমদাদুল্লাহ, মুহাদ্দিস জামিয়া বানুরী টাউন কারাচি।
১৫- মুফতী মাহমুদ আশরাফ উসমানী, দারুল উলুম কারাচি।
১৬- মাওলানা আজিজুর রহমান , দারুল উলুম কারাচি।
১৭- মাওলানা রাহাত আলী হাশমি, দারুল উলুম কারাচি।
১৮- মুফতী মুহাম্মদ , জামিয়াতুর রাশিদ কারাচি।
১৯- মাওলানা মুহাম্মদ দাদ , জামিয়া এমদাদিয়া কুয়েটা।
২০- মাওলানা ডাঃ যোবাইর আশরাফ উসমানী , দারুল উলুম কারাচি।
২১- মাওলানা ইমরান আশরাফ উসমানী , দারুল উলুম কারাচি।
২২- মাওলানা তাহের মাসউদ , জামিয়া মিফতাহুল উলুম সারগোধা।
২৩- মাওলানা মুহাম্মদ খালেদ আব্বাসী, দারুল উলুম মারী।
২৪- মাওলানা মুহাম্মদ নোমান , জামিয়া বানুরীয়া সাইট কারাচি।
২৫- মাওলানা মুহাম্মদ ইহসান আশরাফ উসমানী , দারুল উলুম কারাচি।
২৬- মাওলানা সালমানুল হক , জামিয়া কৌডা খটক।

Leave a Reply